নিহত মকবুলকে দেখতে ঢামেকে মির্জা ফখরুল

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত মকবুল হোসেনের মরদেহ দেখতে ও স্বজনদের সমবেদনা জানাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গিয়েছিলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রাজধানীর নয়াপল্টনে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত মকবুল হোসেনকে দেখতে ঢামেকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

রাজধানীর নয়াপল্টনে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত মকবুল হোসেনকে দেখতে ঢামেকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢামেক জরুরি বিভাগের মর্গে যান মির্জা ফখরুল। তিনি সমবেদনা প্রকাশ ও মকবুলের স্বজনদের সান্ত্বনা দেয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলামসহ নেতাকর্মী।


মকবুলের স্ত্রী হালিমা খাতুন বলেন, ‘বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম তাদের বলেছেন, তিনি আমাদের ফ্যামিলির পাশে আছেন। মরদেহ দাফনের জন্য আর্থিক সাহায্যও করেন তিনি।’

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মকবুল হোসেনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক পৌনে ৪টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মকবুলকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘বিএনপির কার্যালয়ের সামনে থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে এখানে নিয়ে এসেছি। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তির পকেটে থাকা মোবাইল ফোন থেকে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় তার নাম মকবুল হোসেন।’

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, নয়াপল্টন থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে ঢামেকে নিয়ে আসা হয়েছিল। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার মরদেহ মর্গে রাখা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.